রোববার   ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০

সর্বশেষ
শ্রীনগরে আর্থিক কষ্টে মৃৎশিল্পীরা সিরাজদিখানে হাজারো মানুষের ভরসা বাঁশের সাঁকো টঙ্গিবাড়ী উপজেলা ছাত্রদলের পক্ষ থেকে চলছে দোয়া ও বৃক্ষরোপন কর্মসূচী ঝুঁকি নিয়েই ঢাকায় ফিরছে মানুষ উৎসবানন্দে নিঃশঙ্ক চিত্ত জেলার সর্ববৃহৎ বালিগাঁও বাজারে মানুষের উপচে পরা ভির মে পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হতে পারে ৫০ হাজার মানুষ জেলায় লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমিত মুন্সীগঞ্জে চঙ্গ তৈরি করার কারনে পুরো একটি গ্রামের নাম পরিবর্তন কোভিড-১৯ মোকাবেলা চ্যালেঞ্জিং, তবে অসম্ভব নয় - মোঃ শফিকুল ইসলাম জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সেবা দিচ্ছেন সংবাদকর্মীরাঃ মৃনাল কান্তি দাস প্রকৃত জনপ্রতিনিধি হিসেবে প্রতীয়মানের এখনই সুযােগঃআবু বকর সিদ্দিক শ্রীনগরে নার্সারীতে বাহারী আমের বাম্পার ফলন বসল পদ্মা সেতুর ২৯তম স্প্যানঃ দৃশ্যমান ৪ হাজার ৩৫০ মিটার করোনা ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছে যে সকল গণমাধ্যমকর্মীরা.. জেলার ৭৪টি হিমাগার ৪০ ভাগ ফাঁকা-৮০০ কোটি টাকা লোকসানের শঙ্কা ধেয়ে আসছে কালবৈশাখী ঝড় মুন্সীগঞ্জে বর্ষা মৌসুম সামনে রেখে চলছে চাঁই তৈরীর ধুম ২ মিনিটেই মারা যাবে করোনা ভাইরাস নজরদারি বৃদ্ধি করতে বলা হয়েছেঃ পৌর মেয়র বিপ্লব মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কঠোর নির্দেশনা ৯৮ সালে প্রলয়ংকারী বন্যা মোকাবেলার দৃষ্টান্ত তুলে ধরলেনঃমহিউদ্দিন মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার প্রতিদিন জীবানু নাশক পনি ছিটান অব্যাহত গত ২৪ ঘন্টায় করোনায় মারা যাওয়া সবাই ঢাকার আড়িয়ল বিলের মিষ্টি কুমড়া সবচেয়ে সেরা জেলা শহরের বিভিন্ন সড়ক ফাঁকা মুন্সীগঞ্জে আওয়ামী লীগসহ প্রশাসনের নানা আয়োজন মধুচাষে লোকসান টঙ্গীবাড়ীতে ১০০ ছাত্র ছাত্রীদের মাঝে মেধাবৃত্তি প্রদান টিসিবি`র পিয়াজ বিক্রি করতে হেলমেট পরতে হয় না
১৮৪

করোনার ভয়াবহ রুপঃ সার্স, মার্স এবং কোভিড-১৯

প্রকাশিত: ১৮ মে ২০২০  

সালেহীন তুহিন: ‘করোনা ভাইরাসেরক্ষেত্রে চিকিৎসা বিজ্ঞানীদের গবেষনালদ্ধ জ্ঞানের পর্যবেক্ষনে সংজ্ঞায়িত সরল সমীকরনে, বিশেষ এক শ্রেনীকে নির্দেশযোগ্য, যাস্তন্যপায়প্রানীএবংপাখিদেরআক্রান্তেই সীমাবদ্ধ। কিন্তু সাম্প্রতিককালে গবেষেকদের সামগ্রীক সুবিস্তারিত গবেষণায় নির্ধারীত বা নিশ্চিত প্রতীয়মান হয় করোনা ভাইরাস মানবদেহেশ্বাসনালীতেসংক্রমণ ঘটাতে সক্ষম। এছাড়া বিজ্ঞানীরা ব্যপৃত ব্যখ্যায় সুনির্দিষ্ট করেন চিকিৎসা শাস্ত্রমতে যাকেরাইনোভাইরাসহিবেবে অভিহিত করা হয়। বিজ্ঞানীদের অভিমত অন্যান্য প্রজাতিতে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ ঘটানোর ক্ষমতা রাখে।

দৃষ্টান্তানুপাতে উল্লেখ করা হয় তা মুরগীর ক্ষেত্রে উর্ধ্ব শ্বাসনালীতে সংক্রমিত এবং গবাদি পশু বিশেষত গরু, এছাড়াও শুকরের ক্ষেত্রে ডায়রিয়ার প্রাদুর্ভাব সৃষ্টিতে সমর্থ। বিদ্যমান প্রক্ষাপটে বিজ্ঞানীরা পর্যন্ত ধরনের করোনা ভাইরাসের সন্ধান লাভে সক্ষম হয়েছেন যথাসার্স, মার্স এবং কোভিড-১৯

করোনাভাইরাস নিদুভাইরাস বর্গের গোত্রবিশিষ্ট। তাদের পজেটিভ সেন্স একক সূত্রবিশিষ্ট আবরনীবদ্ধ ভাইরাস। এদের নিউক্লিওক্যাপসিড সর্পিলাকৃতির হয়ে থাকে এবং ধরণের আর এন ভাইরাসের মধ্যে সর্ববৃহৎ। করোনাভাইরাস শব্দটি ল্যাটিন ভাষার করোনা থেকে গ্রহন করা হয়েছে যার অর্থমুকুট কেননা দ্বিমাত্রিক সঞ্চালন ইলেক্ট্রন অনুবীক্ষন যন্ত্রে ভাইরাসটির আবরন গদা-আকৃতির প্রোটিনের কাটাগুলোর সদৃশ। যা মোটা দাগে মুকট বা সৌর করনার মতই দৃশ্যমান। ভাইরাসের উপরিভাগে প্রোটিন সংক্রমিত হলে টিস্যু বিনষ্টের ক্ষমতা রাখে। চিকিৎসা বিজ্ঞানীদের আরো অভিমত, ধারনা করা হয়, প্রানীর দেহ থেকে এই ভাইরাস প্রথম মানবদেহে অনুপ্রবেশ করে।

সার্সকরোনা যার পূর্নাঙ্গরূপসেভের এ্যাকিউট রেসপেরেটরি সিনড্রোম ভাইরাস সারস করোনা দ্বারা সৃষ্ট। এই ভাইরাল মূলত শ্বাস প্রশ্বাসের রোগ। নভেম্বর ২০০২ এবং জুলাই ২০০৩ সালে দক্ষিন চীনে সার্সের প্রাদুর্ভবে হাজার ৯৮ জন আক্রান্ত হয়। তৎকালীন সময়ে সার্সের উৎপত্তিস্থল চীনে হলেও বিশ্বের

১৭টি দেশে এর প্রাদুর্ভাব বিস্তর লাভ করে। যার তিতে ফলে  ১৭টি দেশের মোট ৭৭৪ জন মানুস সার্সে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু বরণ করে।সংক্রমিত অনুযায়ী মৃত্যুর হার বির্ধারীত হয় প্রায় ১০ ভাগের

কাছাকাছি। মৃত ব্যক্তিদের মধ্যে মূলভখন্ড চীন এবং হংকংয়েরমানুষই অধিকতর ছিল। ২০১৭ সালের শেষে দিকে চীনা বিজ্ঞানীর উহান প্রদেশেরবাদুড়থেকে ভাইরাসটি আবিষ্কারে সক্ষম হয়।

তবে বিগত ২০০৪ সালের পর অদ্যাবদি বিশ্বের কোথাও সার্স আক্রান্ত রোগীর সন্ধান পাওয়া যায়নি

মার্সএর পূর্ণরূপমিডল ইষ্ট রেসপেরেটরি সিনড্রোম এর রোগ ভাইরাস জনিত শ্বাসতন্ত্রে সংক্রমন ঘটায়। ক্রমশঃ যা জটিল থেকে অত্যন্ত জটিলতর পরিস্থিতির দিকে ধাবিত করে। সর্বপ্রথম ২০১২ সালে সৌদিআরবে উক্ত ভাইরাসজনিত রোগ অথবা ভাইরাসের অস্থিত্ব শনাক্তে সক্ষম হয় বিজ্ঞানীরা। মধ্যপ্রাচ্যের বেশ কয়েকটি দেশে যথা মিশর, আরবআমিরাত এবং ওমানে এর প্রাদুর্ভাব শনাক্ত

হয়। ২০১২ সালের এপ্রিলে মিডল ইষ্টে এই ভাইরাস সৃষ্ট জটিল নিউমোনিয়ায় মৃত্যুর হার ছিল শতকরা ৫০ ভাগ। বিজ্ঞানীরা ধারনা করেছেন মানব দেহে মার্স ভাইরাসের সংক্রমনের সূত্রপাত উট থেকে। কাতার, ওমান, মিশর সৌদি আরবে উটের রক্তেও ভাইরাসের অস্তিত চিহ্নিত করে বিজ্ঞানীরা। এর অন্যান্য উৎস হিবেসে বিজ্ঞানীরা পরবর্তীতে গরু, ছাগল, ভেড়া, মহিষ শুকরের এবং বাদুড় শনাক্ত করেন। এই ভাইরাসে সংক্রমিত উটের সংস্পর্শ আসলে মানুষেরমধ্যে বিস্তার লাভ করে। তেমনি ভালোভাবে সিদ্ধ না করে বা অধাসিদ্ধ উটের মাংস ভক্ষনেও এর প্রাদুর্ভাব ছড়াতে সক্ষম।কোভিড-১৯বিশ্বে সদ্য আবিস্কৃত করোনা ভাইরাসের আরো টি সংযোজন। বিজ্ঞানীদের মতে এটি একটি সংক্রামক ব্যাধি।

মারাত্মক গুরুতর শ্বাসযন্ত্রীয় রোগ লক্ষন সমষ্টি সৃষ্টিকারী করোনা ভাইরাস। তারা আরো মতামত দেন যে, ‘সার্স কোড-নামক এক ধরনের ভাইরাসে আক্রমনে এর উৎপত্তি। গত বছরের ডিসেম্বরে

চীনে প্রথমবারের মত শনাক্ত হয় কোভিড-১৯। সার্স যেখান থেকে উৎপত্তি হয়েছিল সেই উহান থেকেই এটি প্রথম শনাক্ত হয়। ২০২০ সালে প্রাড়াম্ভে সারা পৃথিবীতে ক্রমাগত কোভিড-১৯ ছড়িয়ে পরে। পর্যন্ত বিশ্বের শতাধিক রাষ্ট্রে ভয়ংকর রূপ হামলে পরেছে কোভিড-১৯। সারা দুনিয়াকে স্থবিরে বাধ্য করেছে এই ভাইরাস। ভাইরাসটি ইতোমধ্যে বিশ্বের লক্ষাধিক মানুষের প্রান কেড়ে নিয়েছে আর সংক্রমিত হয়েছে পৃথিবীর প্রায় ৪৭ লাখ মানুষ। মানব দেহে সৃষ্ট এই ভাইরাসের প্রকোপ থেকে মুক্তির কোন টিকা

অ্যান্টিভাইরাল ঔষধ আজো আবিস্কৃত হয়নি। তবে বিশ্বের কয়েকটি দেশ দাবী করছে এই ভইরাসের ভ্যাকসিন আবিষ্কারের কথা।

এই বিভাগের আরো খবর