বুধবার   ১৬ জুন ২০২১

সর্বশেষ
শ্রীনগরে আর্থিক কষ্টে মৃৎশিল্পীরা সিরাজদিখানে হাজারো মানুষের ভরসা বাঁশের সাঁকো টঙ্গিবাড়ী উপজেলা ছাত্রদলের পক্ষ থেকে চলছে দোয়া ও বৃক্ষরোপন কর্মসূচী ঝুঁকি নিয়েই ঢাকায় ফিরছে মানুষ উৎসবানন্দে নিঃশঙ্ক চিত্ত জেলার সর্ববৃহৎ বালিগাঁও বাজারে মানুষের উপচে পরা ভির মে পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হতে পারে ৫০ হাজার মানুষ জেলায় লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমিত মুন্সীগঞ্জে চঙ্গ তৈরি করার কারনে পুরো একটি গ্রামের নাম পরিবর্তন কোভিড-১৯ মোকাবেলা চ্যালেঞ্জিং, তবে অসম্ভব নয় - মোঃ শফিকুল ইসলাম জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সেবা দিচ্ছেন সংবাদকর্মীরাঃ মৃনাল কান্তি দাস প্রকৃত জনপ্রতিনিধি হিসেবে প্রতীয়মানের এখনই সুযােগঃআবু বকর সিদ্দিক শ্রীনগরে নার্সারীতে বাহারী আমের বাম্পার ফলন বসল পদ্মা সেতুর ২৯তম স্প্যানঃ দৃশ্যমান ৪ হাজার ৩৫০ মিটার করোনা ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছে যে সকল গণমাধ্যমকর্মীরা.. জেলার ৭৪টি হিমাগার ৪০ ভাগ ফাঁকা-৮০০ কোটি টাকা লোকসানের শঙ্কা ধেয়ে আসছে কালবৈশাখী ঝড় মুন্সীগঞ্জে বর্ষা মৌসুম সামনে রেখে চলছে চাঁই তৈরীর ধুম ২ মিনিটেই মারা যাবে করোনা ভাইরাস নজরদারি বৃদ্ধি করতে বলা হয়েছেঃ পৌর মেয়র বিপ্লব মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কঠোর নির্দেশনা ৯৮ সালে প্রলয়ংকারী বন্যা মোকাবেলার দৃষ্টান্ত তুলে ধরলেনঃমহিউদ্দিন মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার প্রতিদিন জীবানু নাশক পনি ছিটান অব্যাহত গত ২৪ ঘন্টায় করোনায় মারা যাওয়া সবাই ঢাকার আড়িয়ল বিলের মিষ্টি কুমড়া সবচেয়ে সেরা জেলা শহরের বিভিন্ন সড়ক ফাঁকা মুন্সীগঞ্জে আওয়ামী লীগসহ প্রশাসনের নানা আয়োজন মধুচাষে লোকসান টঙ্গীবাড়ীতে ১০০ ছাত্র ছাত্রীদের মাঝে মেধাবৃত্তি প্রদান টিসিবি`র পিয়াজ বিক্রি করতে হেলমেট পরতে হয় না
৩৬

কর্মক্ষেত্রে ক্ষোভ থেকে গাজীপুরের প্রকৌশলী দেলোয়ারকে হত্যা

প্রকাশিত: ৯ জুন ২০২১  

নিজস্ব প্রতিবেদক-

গাজীপুর সিটি করপোরেশনের প্রকৌশলী দেলোয়ার হোসেন হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় গ্রেপ্তার তিনজনকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেছে পুলিশ। এতে উল্লেখ করা হয়েছে, কর্মক্ষেত্রে ক্ষোভ থেকেই এই হত্যাকাণ্ড। তবে দেলোয়ারের পরিবার এটি বিশ্বাস করছে না। গত ৩০ এপ্রিল মামলার তদন্ত কর্মকর্তা তুরাগ থানার পরিদর্শক শেখ মফিজুল ইসলাম ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে অভিযোগপত্রটি দাখিল করেন।নিহত দেলোয়ারের স্ত্রী খোদেজা বেগমের দাবি, ‘কর্মক্ষেত্রে ছোটখাটো বিভিন্ন বিষয় নিয়ে অনেকের মাঝেই মনোমালিন্য ও ক্ষোভ হতে পারে। শুধুমাত্র ক্ষোভ থেকেই আমার স্বামীকে হত্যা করা হয়েছে, এটা বিশ্বাস হয় না। পরিবারের সবার সঙ্গে বসে অভিযোগপত্রের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেব।’অভিযুক্ত তিনজন হলেন প্রকৌশলী মো. সেলিম ওরফে আনিস হাওলাদার (৪১), ভাড়াটে সন্ত্রাসী হেলাল হাওলাদার শাহিন (৪৫) ও মাইক্রোবাসের চালক হাবিবুর রহমান খান (৩৫)। গাজীপুর সিটি করপোরেশনের কোনাবাড়ি জোনের প্রকৌশলী ছিলেন দেলোয়ার হোসেন। গত বছরের ১১ মে মিরপুরের বাসা থেকে কর্মস্থলে যাওয়ার পথে হত্যাকাণ্ডের শিকার হন তিনি। ওই দিন বেলা সাড়ে ৩টার দিকে উত্তরার ১৭ নম্বরের ৫ নম্বর ব্রিজের পশ্চিমে একটি জঙ্গল থেকে তাঁর লাশ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় তাঁর স্ত্রী খোদেজা বেগম তুরাগ থানায় হত্যা মামলা করেন। পুলিশ তদন্ত নেমে তিনজনকে গ্রেপ্তার করে। তাঁদের দুজন হেলাল হাওলাদার ওরফে শাহিন ও গাড়িচালক মো. হাবিব গত বছরের ২১ মে এই হত্যার সঙ্গে সরাসরি জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দেন। জবানবন্দিতে হেলাল হাওলাদার ওরফে শাহিন নিজেকে ভাড়াটে খুনি বলে উল্লেখ করেন। এর সাত দিন পর ২৭ মে আদালতে জবানবন্দি দেন দেলোয়ারের সহকর্মী সহকারী প্রকৌশলী আনিসুর রহমান। তখন পুলিশ জানায়, কর্মস্থলে দ্বন্দ্বের জেরে আনিসের পরিকল্পনায় দেলোয়ারকে হত্যা করা হয়। ঘটনার প্রায় ১ বছর পর গত ৩০ এপ্রিল ওই তিনজনকেই অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে পুলিশ। অভিযোগপত্রে বলা হয়, সেলিম ওরফে আনিস হাওলাদার বিভিন্ন ঠিকাদারের কাছ থেকে অবৈধ সুবিধা গ্রহণ করতেন, যা দেলোয়ার পছন্দ করতেন না। সেলিম তাঁর অফিসের কর্মচারীদের সঙ্গে ছোটখাটো বিষয় নিয়ে নানাভাবে বকাঝকা ও হয়রানি করতেন। এতে কর্মীরা সেলিমের চেয়ে দেলোয়ারকে বেশি পছন্দ করতে থাকেন। এতেই দূরত্ব তৈরি হতে থাকে সেলিম ও দেলোয়ারের মাঝে।

এই বিভাগের আরো খবর