শনিবার   ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০

সর্বশেষ
শ্রীনগরে আর্থিক কষ্টে মৃৎশিল্পীরা সিরাজদিখানে হাজারো মানুষের ভরসা বাঁশের সাঁকো টঙ্গিবাড়ী উপজেলা ছাত্রদলের পক্ষ থেকে চলছে দোয়া ও বৃক্ষরোপন কর্মসূচী ঝুঁকি নিয়েই ঢাকায় ফিরছে মানুষ উৎসবানন্দে নিঃশঙ্ক চিত্ত জেলার সর্ববৃহৎ বালিগাঁও বাজারে মানুষের উপচে পরা ভির মে পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হতে পারে ৫০ হাজার মানুষ জেলায় লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমিত মুন্সীগঞ্জে চঙ্গ তৈরি করার কারনে পুরো একটি গ্রামের নাম পরিবর্তন কোভিড-১৯ মোকাবেলা চ্যালেঞ্জিং, তবে অসম্ভব নয় - মোঃ শফিকুল ইসলাম জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সেবা দিচ্ছেন সংবাদকর্মীরাঃ মৃনাল কান্তি দাস প্রকৃত জনপ্রতিনিধি হিসেবে প্রতীয়মানের এখনই সুযােগঃআবু বকর সিদ্দিক শ্রীনগরে নার্সারীতে বাহারী আমের বাম্পার ফলন বসল পদ্মা সেতুর ২৯তম স্প্যানঃ দৃশ্যমান ৪ হাজার ৩৫০ মিটার করোনা ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছে যে সকল গণমাধ্যমকর্মীরা.. জেলার ৭৪টি হিমাগার ৪০ ভাগ ফাঁকা-৮০০ কোটি টাকা লোকসানের শঙ্কা ধেয়ে আসছে কালবৈশাখী ঝড় মুন্সীগঞ্জে বর্ষা মৌসুম সামনে রেখে চলছে চাঁই তৈরীর ধুম ২ মিনিটেই মারা যাবে করোনা ভাইরাস নজরদারি বৃদ্ধি করতে বলা হয়েছেঃ পৌর মেয়র বিপ্লব মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কঠোর নির্দেশনা ৯৮ সালে প্রলয়ংকারী বন্যা মোকাবেলার দৃষ্টান্ত তুলে ধরলেনঃমহিউদ্দিন মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার প্রতিদিন জীবানু নাশক পনি ছিটান অব্যাহত গত ২৪ ঘন্টায় করোনায় মারা যাওয়া সবাই ঢাকার আড়িয়ল বিলের মিষ্টি কুমড়া সবচেয়ে সেরা জেলা শহরের বিভিন্ন সড়ক ফাঁকা মুন্সীগঞ্জে আওয়ামী লীগসহ প্রশাসনের নানা আয়োজন মধুচাষে লোকসান টঙ্গীবাড়ীতে ১০০ ছাত্র ছাত্রীদের মাঝে মেধাবৃত্তি প্রদান টিসিবি`র পিয়াজ বিক্রি করতে হেলমেট পরতে হয় না
২৬৬

জেলায় বর্ষার শুরুতেই পদ্মার রুদ্রমূর্তি ধারণঃভাঙ্গন শুরু

প্রকাশিত: ১২ জুন ২০২০  

ব.ম শামীমঃ বর্ষার শুরুতেই উজান হতে নেমে আশা ঢলের পানিতে  পদ্মা নদী রুদ্রমূর্তি ধারণ করেছে। তীব্র স্রোত বইছে পদ্মায়। এতে উপজেলার দিঘিরপাড়, পাচগাও কামাড়খাড়া ও হাসাইল ইউনিয়নের বেশ কিছু অ লে ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। 

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় পদ্মা নদী দিয়ে তিব্র স্রোত বইছে। আর এতে উপজেলার হাইয়ার পাড়, বড়াইল, মূলচর, পাচগাও,হাসাইল গ্রাম এলাকায় পদ্মা নদীতে ভাঙ্গন শুরু হয়েছে।

শত কোটি টাকা ব্যায়ে নির্মিত পদ্মা নদী তীর সংরক্ষন বাঁধের পাচগাও এলাকায় বাধ ধসে যাওয়া স্থানে ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। এতে হুমকির মুখে পড়েছে পুরো বাধটি। 

এছাড়া উপজেলার দীঘিরপাড় ইউনিয়নের হাইয়ারপাড় গ্রামের হাইয়ারপাড় আল-মদিনা জামে মসজিদটি নদীর দিকে একেবারে হেলে পরেছে। মসজিদটির ফ্লোরের নিচের কিছু অংশ ইতিমধ্যে নদীতে বিলিন হয়ে গেছে। যে কোন মুহুর্তে পুরো মসজিদটি নদীতে বিলীন হয়ে যাবে। মাত্র ৪ বছর আগে তৈরী করা মসজিদটির আধুনিক ভবনটির পেছনের অংশের মাটি পদ্মায় বিলিন হয়ে মসজিদটি অনেকটা নদীর দিকে হেলে পরেছে। এছাড়া মূলচর গ্রামের মোস্তফা খা, ইব্রাহিম খার দিঘিরপাড় বাজারের স'মিলের সামনে ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। তারা ওইস্থানে বাঁশ পুতে আবর্জনা ফেলে ভাঙ্গনরোধের চেষ্টা করছে।

দিঘিরপাড়ের মূলচর হতে পাচগাও পর্যন্ত প্রায় ৫ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে কোথায় প্রবল কোথায় মৃদূ আকারে ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। বিগত কয়েক বছরের ভাঙ্গনে টঙ্গীবাড়ী উপজেলার দক্ষিন অংশের হাসাইল ও দিঘিরপাড় ২ টি ইউনিয়নের প্রায় পুরো অংশ এবং কামাড়খাড়া, পাচগাও ইউনিয়নের অর্ধেক অংশ পদ্মায় বিলিন হয়ে যাওয়ায় ওই অ লের মানুষের মনে আতঙ্ক বিরাজ করছে। তারা ভাঙ্গন রোধে পানি উন্নায়ন বোর্ডের পাশাপাশি ব্যাক্তি উদ্যেগে বড় গাছ নদীতে পুতে ব্যাগ ভর্তি বালু ব্যাগ কিছু স্থানে ফেলার উদ্যেগ নিয়েছে।

এ ব্যাপারে দিঘিরপাড় মূলচর গ্রামের বাসিন্দা মিজান খান জানান, এ বছর বর্ষার শুরুতেই নদীতে প্রচন্ড স্রোত বইছে। আর স্রোতের কারনে বেশ কিছু অ লে ভঙ্গন দেখা দিয়েছে। ভাঙ্গন রোধে সরকারের পাশাপাশি এলাকার ধন্যাঢ্য ব্যাক্তিদের সহয়তায় হাইয়ারপাড় হতে মূলচর পর্যন্ত প্রায় ১ কিলোমিটার বালু ভর্তি ব্যাগ ফেলে বাধ নির্মাণের কাজ চলছে।

ওই এলাকার অপর বাসিন্দা হিমেল খান জানান, বাধ নির্মাণ শুরু হওয়ায় এই এলাকার মানুষের মনে অনন্দের বন্যা বইছে। তবে এ এলাকাকে রক্ষার জন্য স্থায়ী বাধ নির্মাণ করা প্রয়োজন।

এ ব্যাপারে দিঘিরপাড় ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আরিফুল ইসলাম হালদার জানান,পানি উন্নয়ন বোর্ড ১০০মিটার একটি বাধ নির্মাণ পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করছে। আরো কিছু বাধ উপজেলা পরিষদ ও ইউনিয়ন পরিষদের সার্বিক সহয়তায় এলাকাবাসী ব্যাক্তি উদ্যেগে স্থানে স্থানে বাধ নির্মাণ করে ভাঙ্গন ঠেকানোর চেষ্টা করছে।

এ ব্যাপারে টঙ্গীবাড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হাসিনা আক্তার জানান, আমি ভাঙ্গনকবলিত স্থানগুলি পরিদর্শন করে দেখেছি প্রচুর ভাঙ্গতেছে। আমি ভাঙ্গনরোধে ব্যাবস্থা নিতে ডিসি অফিসে রিপোর্ট পাঠিয়েছি। শুনলাম পানি উন্নয়ন বোর্ড ১ শত মিটার জিএ ব্যাগ ফেলবে কাজ চলছে।

এই বিভাগের আরো খবর