বৃহস্পতিবার   ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০

সর্বশেষ
শ্রীনগরে আর্থিক কষ্টে মৃৎশিল্পীরা সিরাজদিখানে হাজারো মানুষের ভরসা বাঁশের সাঁকো টঙ্গিবাড়ী উপজেলা ছাত্রদলের পক্ষ থেকে চলছে দোয়া ও বৃক্ষরোপন কর্মসূচী ঝুঁকি নিয়েই ঢাকায় ফিরছে মানুষ উৎসবানন্দে নিঃশঙ্ক চিত্ত জেলার সর্ববৃহৎ বালিগাঁও বাজারে মানুষের উপচে পরা ভির মে পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হতে পারে ৫০ হাজার মানুষ জেলায় লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমিত মুন্সীগঞ্জে চঙ্গ তৈরি করার কারনে পুরো একটি গ্রামের নাম পরিবর্তন কোভিড-১৯ মোকাবেলা চ্যালেঞ্জিং, তবে অসম্ভব নয় - মোঃ শফিকুল ইসলাম জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সেবা দিচ্ছেন সংবাদকর্মীরাঃ মৃনাল কান্তি দাস প্রকৃত জনপ্রতিনিধি হিসেবে প্রতীয়মানের এখনই সুযােগঃআবু বকর সিদ্দিক শ্রীনগরে নার্সারীতে বাহারী আমের বাম্পার ফলন বসল পদ্মা সেতুর ২৯তম স্প্যানঃ দৃশ্যমান ৪ হাজার ৩৫০ মিটার করোনা ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছে যে সকল গণমাধ্যমকর্মীরা.. জেলার ৭৪টি হিমাগার ৪০ ভাগ ফাঁকা-৮০০ কোটি টাকা লোকসানের শঙ্কা ধেয়ে আসছে কালবৈশাখী ঝড় মুন্সীগঞ্জে বর্ষা মৌসুম সামনে রেখে চলছে চাঁই তৈরীর ধুম ২ মিনিটেই মারা যাবে করোনা ভাইরাস নজরদারি বৃদ্ধি করতে বলা হয়েছেঃ পৌর মেয়র বিপ্লব মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কঠোর নির্দেশনা ৯৮ সালে প্রলয়ংকারী বন্যা মোকাবেলার দৃষ্টান্ত তুলে ধরলেনঃমহিউদ্দিন মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার প্রতিদিন জীবানু নাশক পনি ছিটান অব্যাহত গত ২৪ ঘন্টায় করোনায় মারা যাওয়া সবাই ঢাকার আড়িয়ল বিলের মিষ্টি কুমড়া সবচেয়ে সেরা জেলা শহরের বিভিন্ন সড়ক ফাঁকা মুন্সীগঞ্জে আওয়ামী লীগসহ প্রশাসনের নানা আয়োজন মধুচাষে লোকসান টঙ্গীবাড়ীতে ১০০ ছাত্র ছাত্রীদের মাঝে মেধাবৃত্তি প্রদান টিসিবি`র পিয়াজ বিক্রি করতে হেলমেট পরতে হয় না
৬৪৪

মুন্সীগঞ্জে প্রবাসীদের রেজিস্ট্রেশনে দালালদের তৎপরতা

প্রকাশিত: ১০ আগস্ট ২০২০  

মোহাম্মদ সেলিম: করোনাকালীন সময় মুন্সীগঞ্জ জেলার বিদেশ ফেরত প্রবাসীদের রেজিস্ট্রেশন কার্যক্রমে দালালদের তৎপরতা দেখা গেছে। গতকাল সোমবার সকাল থেকে জেলা জনশক্তি ব্যুরো অফিসে ছয়টি উপজেলার প্রবাসীরা ভিড় করেন। এসময় তাদের রেজিস্ট্রেশন ফরম বিনামূল্যে করার কথা থাকলেও তাদের কাছ থেকে ৫০ টাকা করে আদায় করছেন একটি দালালচক্র।
সরেজমিনে দেখা যায়, সোমবার সকাল থেকে প্রবাসীরা অফিসের নিচতলায় ও শহরের প্রধান সড়কের পাশে জড়ো হতে থাকে। মানুষের উপচে পড়া ভিড়ের কারণে এখানকার আশেপাশের স্বাভাবিক কাজকর্ম বন্ধ হওয়ার উপক্রম দেখা দেয়। এছাড়া স্বাস্থ্য বিধি না মেনে পাসপোর্ট ও ফরম জমা দিচ্ছেন প্রবাসীরা। এসময় অফিসের নিচ তলায় একটি ট্র্যাভেল এজেন্সির অফিসের ভেতরে দেখাযায়, প্রবাসীদের বিভিন্ন ধরনের ভয়ভীতি দেখিয়ে ৫০ টাকার বিনিময়ে ফরম পূরণ করে দিচ্ছেন দালাল চক্রটি। পরে দালাল চক্রটির অবৈধ কার্যক্রমের ছবি তুলতে গেলে প্রতিবেদককে বাঁধা প্রদান করেন।
এদিকে, জেলা জনশক্তি ব্যুরো অফিসের গণমাধ্যমকর্মীদের উপস্থিতি বুঝতে পেরে হঠাৎ করেই ফরম পূরণ ছাড়াই শুধু পাসপোর্ট , ভিসার ফটোকপি ও মোবাইল নাম্বারসহ কাগজপত্রের জমা দেয়ার জন্য হ্যান্ড মাইকের ঘোষণা করা হয়। এ বিষয়টি রহস্যে জন্ম দেয় প্রতিবেদকের মধ্যে। কিন্তু এ বিষয়টি আগত প্রবাসীরা অনেকেই কোনভাবেই কর্ণপাত করেনি। বরং নিচতলার একটি ট্র্যাভেল এজেন্সি থেকে সেই ফরমের ৫০ টাকার বিনিময়ে পূরণ করে জমা দিতে দেখা গেছে দিনের শেষভাগ পর্যন্ত। তবে মাইকে ঘোষণার পরে কেউ কেউ এ সময় ফরম ছাড়াই জমা দিয়েছেন বলে জানা গেছে। এ অফিসের প্রবেশ মুখে ট্র্যাভেল এজেন্সির অনেক দালালরা লোকজন ধরে ধরে উপরে নিয়ে যেতে দেখা গেছে। এখানকার ট্র্যাভেল এজেন্সির এখানে এ ধরণের কাজ করার কথা না, অথচ তারা এখানে তাদের অফিসের নিজস্ব কার্যক্রম বাদ দিয়ে ফরম পূরণের কাজে ব্যস্ত হয়ে উঠেন। 
স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানাযায়, সাইন বোর্ডের আড়ালে ট্র্যাভেল এজেন্সি মূলত তাদের দালালি ব্যবসা করছেন। এখানে প্রশাসনের সুনজর থাকা প্রয়োজন ।
লৌহজং উপজেলার আঁটিগাঁও থেকে আসা মালোশিয়া প্রবাসী জসিম ও একই গ্রামের অন্য প্রবাসী ওয়াসিম জানান, সরকার প্রবাসীদের আর্থিক সাহায্য দিবে এ শুনে তারা এখানে এসেছেন। তবে তারা আরো জানান, আমাদের আর্থিক সাহায্য না দিয়ে যদি বিদেশে পাঠানোর ব্যবস্থা করতো তবে ভালো হতো। 
সদর উপজেলার রহমান শেখ বলেন, করোনার কারণে দেশে ফিরে এসেছি। সেই সময় আমাদেরকে ৬ মাসের ছুটি দেয়া হয়ে ছিল। সেই ছুটিও শেষ পর্যায়ে রয়েছে। পরবর্তিতে কি হবে তা এখনো জানা নেই। 
মুন্সীগঞ্জ জেলা জনশক্তি ব্যুরোর সহকারি পরিচালক মো. রফিকুল ইসলাম জানান, ইতোমধ্যে তাদের অধিদপ্তর থেকে একটি নতুন সার্কুলার এসেছে। করোনার সময় যেসব প্রবাসীরা দেশে ফিরে এসেছেন তাদের রেজিস্ট্রেশন করার জন্য বলা হয়েছে। সে অনুযায়ী কার্যক্রম চলমান রয়েছে। এ রেজিস্ট্রেশনের মাধ্যমে প্রবাসীদেরকে সরকার ঘোষিত অনুযায়ি আর্থিক সাহায্য প্রদান করা হবে। তিনি আরো বলেন, শুধু প্রবাসীদের কাগজপত্র যাচাই বাছাই করা আমাদের দায়িত্ব। বাকিটা স্ব স্ব উপজেলার। 

এই বিভাগের আরো খবর